হাজী খাজা শাহাবাজ মসজিদ

হাজী খাজা শাহাবাজ মসজিদ

হাজী শাহাবাজের মাজার ও মসজিদ বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা শহরের রমনা এলাকায় অবস্থিত একটি প্রাচীন মসজিদ। মোগল শাসনামলে শাহজাদা আযমের সময়কালে ১৬৭৯ খ্রিস্টাব্দে এটি নির্মিত হয়। মসজিদটি হাইকোর্টের পিছনে এবং তিন নেতার মাজার এর পূর্ব পার্শ্বে অবস্থিত। এর চত্ত্বরে হাজী শাহবাজের সমাধি অবস্থিত। দৈর্ঘ্যে মসজিদটি ৬৮ ফুট ও প্রস্থে ২৬ ফুট। এতে তিনটি গম্বুজ রয়েছে।
ঐতিহাসিক মুনতাসীর মামুনের মতানুসারে হাজী শাহবাজ ছিলেন একজন অভিজাত ধনী ব্যবসায়ী, যিনি কাশ্মীর হতে সুবা বাংলায় এসে টঙ্গী এলাকায় বসতি স্থাপন করেন। ১৬৭৯ সালে তিনি জীবিত থাকাকালেই এই মসজিদ ও নিজের মাজার নির্মাণ করেন। তৎকালে সুবাহদার ছিলেন শাহজাদা মুহম্মদ আজম।

অভ্যন্তরভাগ

মসজিদ মাটির উঁচু ভিটির উপর অবস্থিত। বাইরের দিকে এর পরিমাপ ২০.৭৩ মি × ৭.৯২ মি। চার কোণের বুরুজগুলি প্যারাপেট পর্যন্ত অষ্টভুজাকার এবং এর পর উপরের অংশ গোলাকার। বুরুজগুলি শীর্ষে ছোট শিরাল গম্বুজ (ribbed cupolas) এবং কলস ফিনিয়াল দ্বারা সজ্জিত। পূর্ব দিকের ফাসাদের কেন্দ্রে একটি অভিক্ষিপ্ত ফ্রণ্টন স্থাপিত যার মাঝে মসজিদের কেন্দ্রীয় খিলানপথটি একটি পাথরের ফ্রেমের মধ্যে ন্যস্ত। কেন্দ্রীয় খিলানপথটির দুপাশে অপেক্ষাকৃত ছোট দুটি খিলানপথ রয়েছে। পূর্ব দিকের তিনটি প্রবেশপথই পর পর দুটি খিলান দ্বারা গঠিত বাইরের দিকের খিলানটি খাঁজকাটা ও ভেতরেরটি অপেক্ষা উঁচু, আর অভ্যন্তরভাগের খিলানটি চতুর্কেন্দ্রিক ধরনের এবং এর শীর্ষবিন্দুতে রয়েছে ওজী (Ogee) আকারের বক্রবস্ত্ত। উত্তর এবং দক্ষিণ দেওয়ালেও একটি করে খিলানপথ রয়েছে। পশ্চিম দেওয়ালে অভ্যন্তরভাগে প্রায় অষ্টভুজাকৃতির কুলুঙ্গিত তিনটি মিহরাব আছে যার কেন্দ্রীয়টি ঐতিহ্যগতভাবে বড় এবং বাইরের দিকে অভিক্ষিপ্ত। কেন্দ্রীয় মিহরাবের পাশে একটি তিন ধাপ বিশিষ্ট মিম্বার রয়েছে। কেন্দ্রীয় মিহরাব এবং প্রবেশপথ উভয়েরই অভিক্ষিপ্ত কাঠামোর দুপাশে রয়েছে ছোট মিনার (turrets) এবং এগুলি প্যারাপেট ছাড়িয়ে উপরে উঠে গেছে। এ ছোট মিনারগুলির শীর্ষ ছোট গম্বুজ ও কলস চূড়া দ্বারা সজ্জিত।

ইটের জোড়া স্তম্ভ থেকে উত্থিত দুটি প্রশস্ত বহু-খাঁজ বিশিষ্ট আড়াআড়ি খিলান মসজিদ অভ্যন্তরকে ৫.১৮ বর্গাকার পরিমাপের তিনটি সমান ‘বে’তে বিভক্ত করেছে। প্রত্যেকটি ‘বে’ অনুচ্চ কাঁধ যুক্ত ড্রামের উপর স্থাপিত গম্বুজ দ্বারা আচ্ছাদিত। পদ্ম ও কলস চূড়ায় সজ্জিত গম্বুজগুলি প্রবেশপথ এবং মিহরাবের উপরে অবস্থিত দুটি প্রশস্ত খিলান ও বদ্ধ খিলানের উপর স্থাপিত এবং এদের অবস্থানান্তর পর্যায় সম্পন্ন হয়েছে অর্ধ-গম্বুজ স্কুইঞ্চ দ্বারা।

সংযোজিত ছোট মিনারগুলির ভিত্তি দৃষ্টিনন্দন কলস নকশায় শোভিত। কোণের বুরুজগুলিতে নিয়মিত বিরতিতে রয়েছে আলঙ্কারিক ব্যান্ড এবং প্যারাপেটে রয়েছে বদ্ধ মারলোন নকশা। মিহরাব ও খিলানপথ বাদ দিয়ে সমস্ত মসজিদের প্লাস্টার করা দেওয়ালে খিলান খোপ নকশার মাধ্যমে চমৎকারভাবে বৈচিত্র্য আনা হয়েছে। মিহরাব খিলানটি ক্রমশ সরু হয়ে যাওয়া দেওয়াল সন্নিহিত স্তম্ভ থেকে অসাধারণভাবে উত্থিত। মিহরাব খিলানের খিলান গর্ভ বর্শা ফলক নকশায় সজ্জিত এবং এদের স্প্যান্ড্রিলে ফুলেল নকশায় স্টাকো করা। কেন্দ্রীয় গম্বুজের অভ্যন্তরীণ ভিত্তিতে কোণা বের হওয়া ইটের অভিক্ষেপ ফ্রিজ রয়েছে যার উপরে প্যাঁচানো দড়ি নকশা করা।